মুদ্রাস্ফীতি: গরুর মাংসের কেজি হবে ১,৪০০ টাকা।

মুদ্রাস্ফীতি

মুদ্রাস্ফীতি (Inflation)
================
মুদ্রাস্ফীতি মানে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থে আপনি আগের তুলনায় আজ অনেক কম জিনিস ক্রয় করতে পারেন। বর্তমানে বাংলাদেশের মুদ্রাস্ফীতি ৬.১৭%। এটা শুনতে তেমন খারাপ লাগে না। ৬.১৭% তো বেশি না। খুবই সামান্য বলে মনে হয়। চলুন, আমরা এই ব্যাপারটা একটু চিন্তা করে দেখি।

আজকে (১৩/০৭/২০২২) সয়াবিন তেল ১ লিটার ২০০ টাকা। বাংলাদেশের বর্তমান মুদ্রাস্ফীতি ৬.১৭%। এবার ৭০ কে আমরা ৬.১৭ দিয়ে ভাগ করি। ৭০/৬.১৭ = ১১.৩৫ বছর। অর্থাৎ ১১ বছর ৪ মাস পর আজকের ২০০ টাকার ১ লিটার সয়াবিন তেল কিনতে হবে ৪০০ টাকায়। বিপরীতভাবে বলা যায়, আজকের ২০০ টাকার মূল্যমান ১১ বছর ৪ মাস পর অর্ধেক অর্থাৎ ১০০ টাকা হয়ে যাবে।

গতকালই আমাদের কুরবানির ঈদ গেল। চলুন দেখি তো গরুর মাংসের ওপর মুদ্রাস্ফীতির প্রভাব কেমন। আজকে গরুর মাংস ৭০০ টাকা কেজি। যদি বাংলাদেশের মুদ্রাস্ফীতি ৬.১৭% থাকে, তবে ১১ বছর পর, ২০৩৩ সালে গরুর মাংসের কেজি হবে ১,৪০০ টাকা।

(মুদ্রাস্ফীতির হারকে ৭০ দিয়ে কেন ভাগ করলাম? এটা একটা গাণিতিক তত্ত্ব। একে লগারিদম বলে। এক্সপোনেনশিয়াল গ্রোথ তথা সূচকীয় অগ্রগতি বের করতে এর ব্যবহার হয়। এটা গুগলে সার্চ করে দেখতে পারেন।)

ছবিতে, কফির দামের ক্ষেত্রে মুদ্রাস্ফীতি বোঝানো হয়েছে। ১৯৭০ সালে যেই কফির দাম ছিল ২৫ পয়সা। ২০২২ সালে সেই একই পরিমাণ কফির দাম হয়েছে ১ টাকা ৮৫ পয়সা। এটা একটা প্রতীকী ছবি মাত্র। যাইহোক, মুদ্রাস্ফীতি নিয়ে আপনাদের কোন গল্প থাকলে কমেন্ট করুন। ধন্যবাদ।

তথ্যসূত্র: The Art of Thinking Clearly. Rolf Dobelli. UK, Sceptre Publication, 2013. P. 107.

Leave a Reply