নতুন উদ্যোগের চিন্তা

নতুন প্রযুক্তি আসবে নতুন নতুন উদ্যোগ থেকে, নতুন কোন কাজে ঝুঁকি নেওয়া থেকে। আজকের বড় বড় রাজনৈতিক দল থেকে শুরু করে বিজ্ঞানের স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান রয়েল সোসাইটি পর্যন্ত সব উদ্যোগই একদিন ছোট্ট একদল লোক গ্রহণ করেছিল, যারা বিশ্বকে পরিবর্তন করে আরও উন্নত করার তাগিদ থেকে সেই উদ্যোগ গ্রহণ করেছিল। সহজভাবে বললে এটা কিছুটা নেতিবাচক শোনাবে – বড় বড় প্রতিষ্ঠানে কাজ করে কোন নতুন জিনিস উদ্ভাবন করা কঠিন, আর যদি আপনি নিজে করতে যান সেটা আরও কঠিন। আমলাতান্ত্রিক কাঠামো সর্বদাই ধীরে চলে, আর যেখানেই একটু ঝুঁকি দেখেছে সেখানেই দাঁড়িয়ে গেছে। আবার একজন ব্যক্তি মেধাবী হলে একটি কাজ চমৎকার ভাবে করতে পারে কিন্তু সম্পূর্ণ একটি প্রতিষ্ঠান দাঁড় করানো তার পক্ষে কঠিন। ঠিক এই জায়গায় একজন উদ্যোক্তার আগমন। একজন উদ্যোক্তা যে নীতির ওপর কাজ করে তা হচ্ছে কাজ করতে গেলে আপনাকে অন্যদের সহযোগিতা নিতে হবে, কিন্তু আপনাকে দলটিকে ছোট করে রাখতে হবে যাতে আপনি নিজে কাজ করার সুযোগ পান ও কাজ করেন।

একটি উদ্যোগ হচ্ছে আপনি যে একটি ভিন্ন ভবিষ্যৎ নির্মাণ করতে যাচ্ছেন সেই পরিকল্পনার ওপর অনেক লোকজনের বিশ্বাস তৈরি করা। একটি নতুন কোম্পানির সবচেয়ে বড় শক্তি হচ্ছে নতুন ধরনের চিন্তা। দ্রুত গতিতে এগিয়ে যাওয়ার চেয়েও এটা গুরুত্বপূর্ণ। ছোট ছোট কাজই কিন্তু আপনাকে চিন্তা করার সুযোগ দেয়। এই বই হচ্ছে আপনি যখন একটি নতুন জিনিস নিয়ে ব্যবসা শুরু করবেন তখন ব্যবসাটিতে সফল হতে কী কী প্রশ্ন ও উত্তর জানতে হবে তা নিয়ে। এখানে কেবল পরিসংখ্যান থেকে তথ্য উঠিয়ে দেওয়া হয়নি বা গল্প বলা হয়নি; বরং আপনাকে চিন্তা করতে উদ্ভুদ্ধ করা হয়েছে। কারণ একটি উদ্যোগ নিতে গেলে এটাই করতে হয় : প্রশ্ন করলে নতুন নতুন বুদ্ধি পাওয়া যায় এবং ব্যবসাটিকে তার আরম্ভস্থল থেকে পুনরায় চিন্তা করা যায়। আরও পড়ুন জিরো টু ওয়ান বই। এখনই জিরো টু ওয়ান বই ক্রয় করুন। বই ক্রয় করতে বাটনের ওপর ক্লিক করুন।

পরবর্তী রচনার লিংক:

স্বপ্নের সূচনা

ধনী হওয়ার ব্যবসায়িক মডেল

নতুন চিন্তার উদ্যোগ

ব্যবসায়িক মডেলের চার নীতি

যেকোনো সফল প্রতিষ্ঠানই আলাদা

প্রতিযোগিতার মূলনীতি

শেষে থাকলে যে সুবিধা

Leave a Reply