ধনী হওয়ার ব্যবসায়িক মডেল

সমাজে বিদ্যমান একটি সমস্যা খুঁজে বের করুন। তারপর একটি ব্যবসায়িক মডেল তৈরি করুন যাতে সেই সমস্যার সমাধান করা যায়।

ঠিক এই সূত্রকে কাজে লাগিয়েই নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনূস গ্রামীণ ব্যাংকের মতো একটি বিশাল প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন।

আমি যখনই চাকরির জন্য কারও সাক্ষাৎকার নিই তখনই এই প্রশ্নটি করি : ‘এমন কোন কোন সত্য বিষয় আছে যাতে খুব কম লোকই আপনার সাথে একমত হয়?’

প্রশ্নটি শুনতে খুব সহজ মনে হলেও উত্তর দেওয়া তত সহজ নয়। বুদ্ধিমত্তার দিক থেকে এ কঠিন, কারণ কমবেশি সবাইকে বিদ্যালয়ে যা শেখানো হয় তারা তাই বলে। মানসিক দিক থেকে কঠিন কারণ যারাই এর উত্তর দিতে যাবে তখন দেখবে যে, উত্তরটি তেমন জনপ্রিয় নয়। হয়তো আপনি কোন অসাধারণ উত্তর দিতে পারবেন না। কিন্তু আপনি তো ইচ্ছা করলে সাহস দেখিয়ে যা মনে আসে তাই বলতে পারেন। আর সাহসই আপনাকে মেধাবী হওয়ার দিকে ধাবিত করে।

আমি প্রায়ই যে উত্তরগুলো শুনি :
‘আমাদের শিক্ষাব্যবস্থার অবস্থা যাচ্ছেতাই। এর খুব দ্রুত সংস্কার হওয়া দরকার।’
‘আমেরিকা একটি ব্যতিক্রমী দেশ।’
‘আল্লাহ বলতে কিছু নেই।’

এগুলো সবই বাজে উত্তর। প্রথম দুইটি হয়তো সত্য। আর এই দুইটিতে হয়তো অনেক লোকই আপনার সাথে একমত হবে। কিন্তু তৃতীয় উত্তরটি কেবল তর্ক করার জন্য। একটি ভালো উত্তর কিছুটা এরকম হতে পারে : ‘বেশিরভাগ লোকজন “ক” এর ওপর বিশ্বাস করে, কিন্তু সত্য হচ্ছে “ক” এর বিপরীত।’ আমি আমার নিজের উত্তর একটু পরে দিচ্ছি। আরও জানতে পড়ুন জিরো টু ওয়ান বই। এখনই জিরো টু ওয়ান বই ক্রয় করুন। বই ক্রয় করতে বাটনের ওপর ক্লিক করুন।

পরবর্তী রচনার লিংক:

স্বপ্নের সূচনা

ধনী হওয়ার ব্যবসায়িক মডেল

নতুন চিন্তার উদ্যোগ

ব্যবসায়িক মডেলের চার নীতি

যেকোনো সফল প্রতিষ্ঠানই আলাদা

প্রতিযোগিতার মূলনীতি

শেষে থাকলে যে সুবিধা

Leave a Reply